আজ : ০৪:১৯, জুলাই ৪ , ২০২০, ২০ আষাঢ়, ১৪২৭
শিরোনাম :

সকল বৈষম্য বিরোধী আন্দোলনের সাথে নির্মূল কমিটি নিউইয়র্কের একাত্মতা ঘোষণা

বিশ্ববাংলানিউজ২৪

আপডেট:০৪:৫১, জুন ৯ , ২০২০
photo


জর্জ ফ্লয়েড থেকে নিখিল তালুকদারঃযুক্তরাষ্ট্রের মেনিসোটায় শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কতৃক কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যার ঘটনায় বর্ণবৈষম্য বিরোধী আন্দোলন যুক্তরাষ্ট্রের গণ্ডি পেরিয়ে যখন গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পরেছে, ঠিক তখনি একই কায়দায় মাতৃভূমি বাংলাদেশেও পুলিশ কতৃক সংখ্যালঘু কৃষক নিখিল তালুকদারকে হত্যা করা হয়। একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি নিউইয়র্ক চ্যাপ্টার যুক্তরাষ্ট্রে জর্জ ফ্লয়েড এবং বাংলাদেশে নিখিল তালুকদার হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়ে ধর্ম ও বর্ণ বৈষম্য বিরোধী সকল আন্দোলনের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে গত ৭ই জুন রবিবার জুম ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেন।

একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি নিউইয়র্ক চ্যাপ্টারের সভাপতি ফাহিম রেজা নুর-এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক স্বীকৃতি বড়ুয়ার পরিচালনায় সভার শুরুতেই ৭ জুন 'ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস' উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। সভায় সংগঠনের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ড. নুরুন নবী বলেন বর্ণ বৈষম্য বিরোধী যে আন্দোলন বর্তমানে হচ্ছে, এটা শুধু কৃষ্ণাঙ্গদের আন্দোলন নয়, এটা আমাদের সকলের আন্দোলন কারণ ধর্ম বা বর্ণ বৈষম্যের শিকার আমরাও প্রতিনিয়ত হই এবং ভবিষ্যতেও হতে পারি। যুক্তরাষ্ট্রে বৈষম্য আগেও ছিল, কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প আসার পর এটা আরও অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। এই দেশের প্রেসিডেন্ট হয়ে সে বর্ণ বা ধর্মীয় বৈষম্য বন্ধ করার কোন চেষ্টাতো করেই নি, তার উপর বর্ণ বৈষম্য বিরোধী এই মানবধিকার আন্দোলনকে নিয়ে বিরূপ মন্তুব্য করেছে। আগামী নভেম্বরে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সরকার পরিবর্তনের মাধ্যমে বৈষম্যের বিরুদ্ধে রায়ের সুযোগ আছে, আমি মনে করি আমেরিকার জনগণ নির্বাচনের সুযোগকে কাজে লাগিয়ে তার যথাযথ উত্তর দিবেন। আর বাংলাদেশে নিখিল তালুকদেরকে যেভাবে হত্যা করা হয়েছে এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। আমাদের দেশে যে সমস্যাটা হচ্ছে, যতক্ষণ পর্যন্ত মাননীয় প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ না করেন ততক্ষণ পর্যন্ত প্রশাসন থেকে মন্ত্রণালয় পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেন না, এটা খুবই দুঃখজনক। আমি এই ধরনের হত্যাকাণ্ডের যথাযথ বিচার দাবি করছি। নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক বাঙালীর সভাপতি ও সংগঠনের উপদেষ্টা সাংবাদিক কৌশিক আহমেদ বলেন যুগে যুগে আমরা বৈষম্যবাদ দেখেছি, কিন্তু সাথে সাথে এটাও আমরা দেখেছি মানুষের সভ্যতাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য বৈষম্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ হয়েছে এবং এই বৈষম্য বিরোধী যুদ্ধ যে শেষ হয়ে যায়নি জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে তা আবার দেখতে পাচ্ছি। জর্জ ফ্লয়েড একজন প্রতীক, এই যুক্তরাষ্ট্রে গত ৩০ বছর পুলিশি নির্যাতনে যাদেরকে হত্যা করা হয়েছে তাদের সকলের গায়ের রং কিন্তু কালো। শুধু আমেরিকানরা নয়, সারা বিশ্বের মানুষ মনে করছে জর্জ ফ্লয়েডকে কালো বলেই নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। আমেরিকার মত একটি সভ্য দেশেও আমরা দেখতে পাই মানুষকে বিচার করা হয় তার গায়ের রং দিয়ে, তার ধর্ম দিয়ে কিংবা তার ইমিগ্রেসন স্ট্যাটাস দিয়ে। বাংলাদেশেও বৈষম্য আছে, সেটা হচ্ছে ধর্মীয় বৈষম্য। কিন্তু পার্থক্য হচ্ছে এখানে সাধারণ মানুষ বৈষম্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদমুখর হয়ে রাস্তায় নেমে আসে, যেটা আমরা বাংলাদেশে দেখতে পাইনা। এখানে মানুষ যেভাবে রাস্তায় নেমে এসেছে সেটা আমাকে আশা জাগায়, এভাবে মানুষ যেখানেই প্রতিবাদমুখর হবে সেখানেই বৈষম্য অনেকটাই কমিয়ে আনা যাবে বলে আমি মনে করি।

মুক্তিযোদ্ধা সুব্রত বিশ্বাস বলেন জর্জ ফ্লয়েডকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়েছে এবং যুক্তরাষ্ট্র সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রতিবাদ হচ্ছে, আর যখন প্রায় একই কায়দায় বাংলাদেশের কোটালিপাড়ায় গরীব কৃষক নিখিল তালুকদারকে তার মেরুদণ্ড ভেঙ্গে দিয়ে হত্যা করা হয়, তখন আমরা তেমন কোন আন্দোলন কিংবা প্রতিবাদ দেখতে পাইনা। এমনকি একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে তেমন প্রতিবাদ দেখতে পাইনি। তাহলে কি ধরে নিতে হবে জর্জ ফ্লয়েড একজন মানুষ, কিন্তু বাংলাদেশের সংখ্যালঘু বলে, গরীব বলে, কৃষক বলে নিখিল তালুকদার মানুষ নয় এবং তার পরিবার বিচার পেতে পারে না? বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা উপজেলায় সংখ্যালঘুরা প্রতিনিয়ত নির্যাতিত হচ্ছে, কিন্তু এই ধর্মীয় বৈষম্য বন্ধের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে না। ভারতে দলিতরা প্রতিনিয়ত বৈষম্যের স্বীকার হচ্ছে, পাকিস্তানে সংখ্যালঘুরা প্রতিনিয়ত বৈষম্যের স্বীকার হচ্ছে। আমি আশা করব একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি ভারত শাখা এবং পাকিস্তান শাখা নিজ নিজ দেশে বৈষম্যের বিরুদ্ধে সক্রিয় ভূমিকা পালন করবেন। সংগঠনের উপদেষ্টা সাংবাদিক শীতাংশু গুহ বলেন জর্জ ফ্লয়েড হত্যকান্ডে আমরা নিন্দা জানাই এবং এই আন্দোলনের সাথে সহমত পোষণ করি। কিন্তু বাংলাদেশে একেই কায়দায় যে হত্যাকাণ্ড ঘটল এই নিয়ে আমাদের সুশীল সমাজের সুশীলরা নীরব এবং আমরা জানতে পেরেছি একটা সময় পর্যন্ত মামলাও করতে দেওয়া হয়নি, পরে টাকা পয়সা দিয়ে এই হত্যাকাণ্ডের মীমাংসা করার চেষ্টা করা হয়েছে। আমরা বিচারহীনতা দেখতে চাই না। এই নির্মম হত্যকান্ডের বিচার দাবি করছি এবং বাংলাদেশের সকল মানবিধকার সংগঠন এই হত্যকান্ডের বিচার দাবিতে যথাযথ ভূমিকা পালন করবেন বলে আশা করছি।

সমাপনি বক্তব্যে সভাপতি ফাহিম রেজা নূর বলেন যুক্তরাষ্ট্রে বর্ণ বৈষম্য বিরোধী আন্দোলনের সর্বশ্রেণীর জনগণের যে স্বতঃস্ফূর্ত সমর্থন তা দেখে বুঝা যায় পরিবর্তনের সময় এসেছে এবং আগামী নভেম্বরে পরিবর্তন আশা করা যায়। আমাদের দেশে যে হত্যাকাণ্ড ঘটেছে তার তীব্র নিন্দা জানাই এবং দ্রুত বিচার দাবি করছি, তবে আন্দোলনের নামে বাংলাদেশে যেন কেউ বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি না করতে পারে সেই ব্যাপারে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। তিনি অংশগ্রহণকারী সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।



সাম্প্রতিক খবর

জৈন্তাপুরে একই দিনে ভাইরাসে আক্রান্ত ১৬

photo জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধিঃসিলেট জৈন্তাপুর উপজেলায় কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসে আক্রন্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। বর্তমানে জৈন্তাপুরে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৮৫জন। তার মধ্যে মৃত্যু বরণ করেছে ১জন, সুস্থ্য হয়েছেন ৪৮জন, নতুন নমুনা সংগ্রহ ৫ জন, ফলাফলের অপেক্ষায় রয়েছে ২২জন। জৈন্তাপুরে কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের রিপোর্ট কয়েকদিন থেকে না আসায় থমকে ছিল ফলাফল, বর্তমানে ১৮ দিন পরে

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment