আজ : ০৫:৩৯, জুন ৪ , ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭
শিরোনাম :

লন্ডনে বাংলা টিভি চ্যানেল প্লীজ করোনা নিয়ে চ্যারিটি করবেন নাঃবাবুল রহমান

বিশ্ববাংলানিউজ২৪

আপডেট:০৮:৫৪, মার্চ ২৬ , ২০২০
photo


আসসালামু আলাইকুম,মহামারী করোনা ভাইরাসের সময় টিভি চ্যানেল গুলোকে প্লীজ এই অনৈতিক কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকুন।আপনার ব্যবসার জন্য তথাকথিত চ্যারিটি গুলোকে সাহায্য করে অন্যায়ের মদদদাতা হিসেবে আপনাদের শেষ বিচারের সম্মুখীন হতে হবে।চোরে না শুনে ধর্মের বাণী,যে গ্রন্থ নিয়ে ধর্ম ব্যবসা করে মানুষের হৃদয়ে স্হান নিতে যাচ্ছো আদৌ কি আল্লাহ পাচ্ছো!নাকি আল্লাহকে হারিয়ে জাহান্নামের দিকে যাচ্ছো?তামাম বিশ্ব আজ আতংকিত ছোট্ট ভাইরাস থেকে বাচঁতে ঘরে বসে সময় কাটাচ্ছে,সরকারী আইন মেনে চলছে ঠিক এই সময়ে একশ্রেণীর মানুষ সুযোগ নিয়ে চলছে।

জেনে নিন ওরা কারা।
ওরা হচ্ছে মানুষরূপী কিছু বাটপার,আপনারা বিভিন্ন সময়ে টিভিতে দেখেছেন ইনিয়ে বিনিয়ে ইসলামকে বিক্রী করে সহজ সরলমনা বিলেতের বাঙ্গালীর হৃদয়ে ঢুকে পকেট হাতিয়ে নেয়।শেষরাতের মোনাজাতে আপনার মা বাবা স্বজনকে সরাসরি বেহেস্ত পাঠিয়ে দিতে বন্দোবস্ত নেয়া তথাকথিত চ্যারিটির লোক।

এখন শুনুন, চ্যারিটি একটি মহত কাজ আমি কোনভাবেই এর বিরুধীতা করছিনা কিন্তু ব্যাঙ্গের ছাতার মত গজিয়ে উঠা চ্যারিটি অর্গেনাইজেশন আমাদের কমিউনিটিকে গ্রাস করতে নানা ফন্দিফিকিরে হাজির হচ্ছে।দেশ এ জাতির ক্রান্তিলগ্নে বিভিন্ন ফতোয়ার মাধ্যম্যে আপনাকে জান্নাতে ও বিধর্মীদের জাহান্নামে নিক্ষেপ করে শেষরাতের মোনাজতের মাধ্যমে পাউন্ড হাতিয়ে ঘরে ফিরছে।

ওহে মানবজাতি তোমরা শোন,আযান শুনলে কিন্তু নামাজ আদায় করলে না শুনতে কেমন লাগে তাই না…!হ্যাঁ সত্যি কর্ণভেদ করে গেলেও বাকিরা নামাজ আদায় করে নিথর দেহকে সামনে রেখে। প্রত্যেকেই জন্মিলে মরিতে হবে জানে তবে সন তারিখ জানেনা।

মানুবজাতিকে ঘৃণা করো, এটা কুরআন শেখায় না! মসজিদে গিয়ে আগুন লাগাও, এটাও অন্য ধর্ম বলে না! প্রত্যেক জাতিগোষ্ঠিতে কিছু বিপদগ্রস্ত মানুষের কাজ হচ্ছে নানা ধান্দায় প্রতারণা করে হাতিয়ে নেয়া।ঐ জঘন্য কাজের বিরুদ্ধে সোচ্চার হোন।আল্লাহপাকের কোরআনের বর্ণিত তোমাদের পূর্বে বহু জাতি গোষ্ঠিকে ধঃস্ব করেছি নিশ্চয় তোমরা অবগত।

তুমি গীতা পড়বে না কুরআন পড়বে এই নিয়ে যুদ্ধ কেন,তুমি জানতে শেখো কোনটা মঙ্গল আনতে পারে অতপর সেভাবেই জীবন চালিয়ে যাও।আমার দ্বীনি দাওয়াত চালিয়ে যাব।তারা আদৌ কোনটাই পড়েনি কখনো অথবা পড়ে বুঝেনি,যদি জানতো বা বুঝতো তাহলে কিন্তু ধর্মের দোহাই দিয়ে তাদের সর্বনাশ করতো না।বিচারের সম্মুখীন হতে হবে বিশ্বাস করলে শেষ বিচারের দিন কৃতকর্মের ফল ভোগ করতে হবে।

মসজিদের ইমাম আর মন্দির গীর্জার পান্ডিতের রক্তের রংও আলাদা করা যায়না!দুজনের চোখের ভাষা তো একই, দুজনই তো জন্মেছে মায়ের পেট থেকে, দুজনেরই তো মৃত্যু হবে! এরা মানবকুলকে ভালো জিনিষ শেখায় নিজ ধর্মের ভিত্তিতে।

চেয়ে দেখো আকাশের দিকে, অগণিত তারা তোমাদের দিকে তাকিয়ে আছে।ছোট্ট ছোট্ট নক্ষত্রের, ছোট্ট একটা পৃথিবীর, ছোট্ট একটা শহরে বাস করে তোমরা নিজেদের কি মনে করো?মানুষ প্রতারিত করে কতদিন চলবে,এই গজব (ভাইরাস) কি আল্লাহ বিধর্মীর জন্য দিয়েছেন?

কোরআন শরিফে বর্ণিত আছে তোমাদের উপর নিকটাত্বীয়ের হক আছে,প্রতিবেশীর হক আদায় করতে ভুলনা,সামান্য টিভিতে আপনার কন্ঠ শুনিয়ে নিজেকে ধন্য মনে করে ঐসব গরীবদের বঞ্চিত করবেন না। দোহাই আপনাদের,আপনারা ওদেরকে বঞ্চিত করবেন,শেষরাতের ঐ বিশেষ মোনাজাতের চেয়ে আপনার চোখের লোনা পানি আল্লাহ কাছে বেশী পছন্দনীয়।আপনার ঐ দশ বিশ পাউন্ড ওদের হাতে পৌছামাত্র ওদের খুশিতে আল্লাহ খুশী হয়ে যাবেন।

যিনি এই বিশ্বজগৎ সৃষ্টি করেছে তার সৃষ্টিকে কিভাবে ঘৃণা করতে পারো? আপনার যাকাতের হকদ্বার কারা আপনি জেনে নিন,লিল্লাহ পার্টির দরাজ কন্ঠ শুনে নিজেকে সামলাতে না পেরে কিছু মানুষকে ভোখা রাখছেন সেটার জন্যও আল্লাহকে কৈফিয়ত দিতে হবে।প্রতারকদের কন্ঠ শুনে যেন আমাদের হৃদয়ে সুড়সুড়ি না আসে,হৃদয় দুমড়ে মুচড়ে যাওয়ার মত কথাগুলো হচ্ছে আপনাকে কাতর করার মুল বুলেট।

আপনার ছোট্ট একটা ভালো কাজও সদকাহ হিসেবে আল্লাহ গ্রহণ করেন,ভন্ডদের হাতে না দিয়ে NHS এ যারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমাদের পাশে তাদের জন্য সামান্য চা বিস্কুট দুপুরের খাবারের ব্যবস্হা কি আল্লাহ কবুল করবেন না.!
নিশ্চয় কবুল করবেন,পরিবারের মৃত ব্যক্তিদের পূন্য তালিকায় যুক্ত হবে।

আসুন আমরা সবাই ঘরে থেকে নিজেকে সুস্হ রাখি এবং অপরকেও সুস্হ রাখতে সাহায্য করি,দেশের মানুষদের পাশে দাঁড়াই এবং ভন্ড চ্যারিটিকে না বলি।মহামারীকে নিয়ে তামাশা করে আখের গোঁজার লোকদের চিহ্নিত করি,টিভ চ্যালেনে ফোন না করে আস্তাগফির পড়ি,আল্লাহের কাছে তওবা করে দোয়া করি আমাদেরকে এই কঠিন মসিবত থেকে রক্ষা কর।
জান্নাত কিনতে ব্যস্ত না থেকে জান্নাত পেতে কি করতে হবে জেনে নেই।মনে রাখবেন এতো সস্হা দামে জান্নাত কিন্তু টিভিতে বিক্রী হচ্ছে ভাববেন না,জান্নাতের সার্টিফিকেট কেউ দিতে পারবেনা।নিশ্চয়ই আপনার প্রতিটি সদকাহ জান্নাতের চাবিকাঠি।

অ আমার দেশী ভাইবোনেরা একটু তাকাও দেশের খেটে খাওয়া মানুষরা কি খেয়ে বাঁচবে? এরা কি আমাদের মত ভাইরাসের ভয়ে বিচলিত,নাহ্ ওরা না খেয়ে মরার জন্য উৎকন্ঠিত।আমরা কি সামান্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে পারিনা.!
মানুষ মানুষের জন্য,ক্ষুধার যন্ত্রনায় ওরা যেন কষ্ট না পায়।আমার দায়িত্ব পালন করলেই আমি মানুষ,মনুষ্যজাতির কল্যাণেই নিবেদিত হোক আমাদের চিন্তা চেতনা।আল্লাহ তুমি সবাইকে হেদায়েত করো।

Posted in মতামত


সাম্প্রতিক খবর

নিলা তুমি যেওনাঃবাবুল রহমান

photo ভালোবাসা ও পছন্দের মানুষগুলো শ্বাসরোধ করেই থেমে থাকেনা,আমেরিকার জর্জ ফ্লোয়েডের মত মৃত্যু নিশ্চিত করেই যেতে চায়।অনুভূতির জায়গাটি নিয়ে খেলতে আগ্রহী,ভেবে দেখেনা মানুষটি কত কষ্ট পাবে।পাথরের তৈরী মন হলে সেখানে আঘাতে কিছু হবেনা কিন্তু হৃদয়টা যে এমন অল্পতেই নষ্ট হয়,কষ্ট লাগে বড্ড। নিলার সাথে পরিচয় জর্ডানের ট্রান্জিট লাউন্জে,সেইথেকে টুকটাক মেসেজ দেয়া নেয়া এবং অন্তরঙ্গ।বেশদিন

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment