আজ : ১২:৪৫, ডিসেম্বর ১৪ , ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬
শিরোনাম :

জেনেভায় হলুদ সাংবাদিকতা বিষয়ে নিন্দা ও প্রতিবাদ

বিশ্ববাংলানিউজ২৪

আপডেট:০১:২১, নভেম্বর ৩০ , ২০১৯
photo

সুইজারল্যান্ড,জেনেভা থেকে মোজাম্মেল হক মামুনঃসংবাদপত্র কে বলা হয় সমাজের দর্পণ। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যসমৃদ্ধ সংবাদ পরিবেশন করা সংবাদপত্র ও সাংবাদিকদের নৈতিক দায়িত্ব। অতন্ত্য নিন্দনীয় ও পরিতাপের বিষয়, বাংলাদেশের মফস্বল শহরের কতিপয় অনলাইন পত্রিকা বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের পরিবর্তে হীন উদ্যেশে মিথ্যা, হলুদ সংবাদ পরিবেশন করে সমাজে দুবৃত্তায়ন করছে। সামাজিক দুবৃত্তায়ন রোধে হলুদ সাংবাদিকতার বিরুদ্ধে বর্তমান সরকারের নতুন আই.সি.টি এক্টে কঠোর শাস্তি প্রয়োগের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের প্রতি আহব্বান জানিয়েছে জেনেভাস্থ মানবাধিকার সংগঠন “ইন্টারন্যাশনাল ফোরাম ফর সেকুল্যার বাংলাদেশ” সুইজারল্যান্ড শাখা।
সোমবার (২৫শে নভেম্বর) বিকালে জেনেভার প্রাণকেন্দ্রে স্থানীয় সাজনা রেষ্টুরেন্টের বল রুমে ‘হলুদ সাংবাদিকতা প্রতিরোধে আই.সি.টি এ্যাক্ট এর কার্যকরী ভূমিকা’ শীর্ষক গোল টেবিল আলোচনা সভায় বক্তারা এ বিষয়ে অভিমত ব্যক্ত করেন।
ইন্টারন্যাশনাল ফোরাম কর সেক্যুলার বাংলাদেশ সুইজারল্যান্ড শাখার সভাপতি রহমান খলিলুর এর সভাপতিত্বে গোল টেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা ও জেনেভা জাতিসংঘের অবসর প্রাপ্ত কর্মকর্তা মিয়া আবুল কালাম।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্ঠা জনাব শাহীন মজুমদার। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক পলাশ বড়–য়ার সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় হলুদ সাংবাদিকতা বিষয়ে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখেন। সুইজারল্যান্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শ্যামল খান, যুগ্ম সম্পাদক মাসুম খান দুলাল, সহ সভাপতি মশিউর রহমান সুমন, সুইজারল্যান্ড আওয়ামীলীগের উপদেষ্ঠা মোহাম্মদ মহসিন, দিবাকর পাল কল্যান, আলী আকবর, ব্লগার হাসান ইমাম খান, জেনেভা বাংলাদেশ ক্লাবের সাবেক সভাপতি যথাক্রমে নজরুল ইসলাম মজুমদার এবং আশরাফুল ইসলাম আজাদ।
আলোচ্য বিষয় বস্তু নিয়ে সূচনা পর্বে মূলবক্তব্য উপস্থাপন করেন আয়োজক সংগঠনের বর্তমান সহ-সভাপতি ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাসুম খান দুলাল। তার লিখিত বক্তব্যে জনাব দুলাল বাংলাদেশের মুন্সীগঞ্জ থেকে প্রকাশিত ‘আমার বিক্রমপুর’ নামে একটি অনলাইন পত্রিকার ১৬ অক্টোবর তারিখে প্রকাশিত মুন্সিগঞ্জে মাদক ব্যবসার মূল হোতা কারা? শীর্ষক একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন। তিনি তার মূল বক্তব্যে বলেন মুন্সিগঞ্জে ‘আমার বিক্রমপুর’ অনলাইন পত্রিকাটি বহুল প্রচারিত। দেশে ও প্রবাসে মুন্সীগঞ্জ-বিক্রমপুবাসী এই অনলাইন পত্রিকা নিয়মিত পড়ে থাকেন। পত্রিকার সম্পাদক আমার বিশেষ পরিচিত। অনলাইনে ১৬ অক্টোবরের প্রতিবেদনে একটি নিরীহ সাদা-সিধে কলেজ ছাত্রের নাম ও ছবি ছাপিয়ে মাদক ব্যবসার প্রতিবেদন প্রকাশ করেছেন। মাসুম খান ‘আমার বিক্রমপুর’ অনলাইনের উল্লেখিত প্রতিবেদনটি পড়ে শোনান এবং প্রতিবেদনে প্রকাশিত ছবি দেখিয়ে সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, একটি কলেজ পড়–য়া ছাত্রের জীবন ধ্বংস করার লক্ষ্যে, তার নিকট চাঁদা দাবী করে, চাঁদা

না পেয়ে সম্পূর্ণ নিরাপারাধ একটি সম্ভাবনাময় যুবকের জীবন ধ্বংস করার লক্ষ্যে ফেইসবুক থেকে ফাহিমের ছবি সংগ্রহ করে, গ্রাফিক্্র ডিজাইনের মাধ্যমে ফেনসিডিল বোতলের ছবি সংযুক্ত করে অত্যন্ত বিতর্কিত একটি ছবি ছাপিয়েছেন। অত্যন্ত নির্ভরযোগ্য সত্য, আপনার সকলেই খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন-কলেজ ছাত্র ফাহিমের বিরুদ্ধে স্থানীয় মহল্লায়, থানায় বা প্রশাসনে আজ অবধি মাদক বা কোন ধরনের অনৈতিক কাজের অভিযোগ নেই। তথাকথিত সাংবাদিক- ফাহিমের নিকট মোটা অংকের চাঁদা দাবী করেন, যা কিনা এই ধরনের অনলাইনের অনৈতিক ব্যবসা। চাঁদা না পেয়ে তারা ফাহিমের বিরুদ্ধে এই ধরনের ডাহা মিথ্যা সংবাদ ও নোংরা ছবি ছাপিয়েছেন।
গোলটেবিল আলোচনা সভার প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি ও বক্তারা তীব্র ক্ষোভ জানিয়ে বলেন-একটি ভদ্র মার্জিত, কলেজ পড়ুয়া ছাত্রের জীবন ধ্বংস করার হীন উদ্যেশ্যে তার বিরুদ্ধে কোন তথ্য উপাত্ত ছাড়া, ফেইসবুকের ছবি দিয়ে নোংরা বিতর্কিত ছবি ছাপানো নৈতিক সাংবাদিকতার অংশ হতে পারে না। বক্তারা বলেন, এই ধরনের ক্রটিপূর্ণ ছবি, মিথ্যা বানোয়াট প্রতিবেদন দেশ ও জাতির জন্য সমাজের মূল্যবোধ অবক্ষয়ের অন্যতম কারন। এধরনের সংবাদ পরিবেমনের মাধ্যমে নিরাপধ যুব সমাজকে অন্ধকারে ঠেলে দেয়া হবে।
আলোচকগণ সকলেই বলেন, বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার পরিপন্থি এই ধরনের অনলাইন সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে সরকারের আইন শৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর পদক্ষেপ নেয়া উচিত এবং দেশের প্রচলিত আই.সি.টি এ্যক্টে এ ধরনের হলুদ সাংবাদিকদের কঠোর শাস্তি হওয়া উচিত।
সভাপতির সমাপনী বক্তব্যে মানবাধিকার কর্মী রহমান খলিলুর বলেন- সমস্ত প্রতিবেদনটি একটি মিথ্যা বানোয়াট এবং অত্যন্ত কুরুচিপূর্ণ। তিনি বলেন এ প্রতিবেদক শুধু কলেজ ছাত্র ফাহিমের মিথ্যা সংবাদ ও নোংরা ছবি ছাপিয়ে ক্ষান্ত হন নাই। প্রকারন্তরে ফাহিমের প্রবাসী মামা মাসুম খান দুলাল যিনি সুইজারল্যান্ড আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক এবং ইন্টারন্যাশনাল ফোরাম ফর সেকুল্যার বাংলাদেশ (সুইস শাখা) এর বর্তমান সহ-সভাপতি। তার নাম জাড়িয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে তাকে এবং সংগঠনকে সামাজিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করেছে।
বর্তমান সরকারের নিকট আমরা এই প্রতিবেদক ও ‘আমার বিক্রমপুরের’ সম্পাদকের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করছি। অন্যথায় আমরা জেনেভাস্থ জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশনের পরবর্তী সেশনে এ বিষয়ে আমাদের বক্তব্য তুলে ধরবো।



সাম্প্রতিক খবর

চার বাঙ্গালী নারীর লন্ডন জয় সাধারন নির্বাচনে কনজারভেটিভের হ্যাট্রিক লেবারের শোচনীয় পরাজয় ব্রিটেনের ইউ থেকে বেরিয়ে আসতে আর কোন বাধা নেই

photo মতিয়ার চৌধুরীঃগতকাল ১২ ডিসেম্বর ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচনে ৩৬৪টি আসন পেয়ে হ্যাট্রিক করেছে ক্ষমতাসীন কনজারভেটি দল, অন্যদিকে প্রধান বিরোধী দল লেবারের শোচনী পরাজয় হয়েছে। আর এই নির্বাচনে লন্ডন জয় করেছেন চার বাঙ্গাল নারী। এবারের নির্বাচনে ক্ষমত্সীন কনজারভেটিবের আসনে বেড়েছে ৪৭টি, লেবার দলের কমেছে ৫৯টি, লিবারেল ডেমক্রেটের কমেছে ১টি, মোট ৬৫০ আসনের মধ্যে রক্ষনশীল দল কনজাভেটিব

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment